সাধারণ জ্ঞান "বাংলা সাহিত্য" বিসিএস এবং সরকারী চাকুরীর পূর্ণাঙ্গ প্রস্তুতি - ১৫

সাধারণ জ্ঞান "বাংলা সাহিত্য" বিসিএস এবং সরকারী চাকুরীর পূর্ণাঙ্গ প্রস্তুতি - ১৫
১. কোনটি কাব্যগ্রন্থ?
[ক] শেষ প্রশ্ন
✅ শেষ লেখা
[গ] শেষের কবিতা
[ঘ] শেষের পরিচয়

☂ প্রশ্ন বিশ্লেষণ:
শেষ লেখা
🔶 রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর রচিত কাব্যগ্রন্থ- শেষ লেখা।
শেষ প্রশ্ন
🔶 শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় রচিত উপন্যাস- শেষ প্রশ্ন।
শেষের কবিতা
🔶 রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর রচিত উপন্যাস- শেষের কবিতা।

২. নজরুল ইসলামের প্রথম প্রকাশিত গ্রন্থ কোনটি?
[ক] রাজবন্দীর জবানবন্দী
✅ ব্যথার দান
[গ] অগ্নিবীণা
[ঘ] নবযুগ

☂ প্রশ্ন বিশ্লেষণ:
ব্যথার দান
🔶 নজরুল ইসলামের প্রথম প্রকাশিত গল্পগ্রন্থ- ‘ব্যথার দান’ (ফেব্রুয়ারি, ১৯২২)।
অগ্নিবীণা
🔶 তাঁর প্রথম প্রকাশিত কাব্যগ্রন্থ- ‘অগ্নিবীণা’ (সেপ্টেম্বর, ১৯২২)।
রাজবন্দীর জবানবন্দী
🔶 তার প্রবন্ধগ্রন্থ- ‘রাজবন্দীর জবানবন্দী’ (১৯২৩)।
নবযুগ
🔶 কাজী নজরুল ইসলাম সম্পাদিত পত্রিকা- নবযুগ (১৯২০)।

৩. কোনটি মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক উপন্যাস?
[ক] চিলেকোঠার সেপাই
✅ আগুনের পরশমণি
[গ] একাত্তরের দিনগুলি
[ঘ] পায়ের আওয়াজ পাওয়া যায়

☂ প্রশ্ন বিশ্লেষণ:
আগুনের পরশমণি
🔶 হুমায়ূন আহমেদের মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক উপন্যাস- ‘আগুনের পরশমণি’।
চিলেকোঠার সেপাই
🔶 আখতারুজ্জামান ইলিয়াস রচিত একটি সামজিক উপন্যাস- ‘চিলেকোঠার সিপাই’।
🔶 উপন্যাসটির উপজীব্য- ’৬৯-এর গণআন্দোলন।
একাত্তরের দিনগুলি
🔶 জাহানারা ইমামের মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিকথা (প্রবন্ধ)- ‘একাত্তরের দিনগুলি’।
পায়ের আওয়াজ পাওয়া যায়
🔶 সৈয়দ শামসুল হকের মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক নাটক- ‘পায়ের আওয়াজ পাওয়া যায়’।

8. কোনটি শামসুর রাহমানের রচনা?
[ক] নিরন্তর ঘণ্টাধবনি
[খ] নির্জন স্বাক্ষর
✅ নিরালোকে দিব্যরথ
[ঘ] নির্বাণ

☂ প্রশ্ন বিশ্লেষণ:
নিরালোকে দিব্যরথ
🔶 শামসুর রাহমান রচিত কাব্যগ্রন্থ- নিরালোকে দিব্যরথ।
নিরন্তর ঘণ্টাধ্বনি
🔶 সেলিনা হোসেন রচিত উপন্যাস- নিরন্তর ঘণ্টাধ্বনি।
নির্জন স্বাক্ষর
🔶 বুদ্ধদেব বসু রচিত উপন্যাস- নির্জন স্বাক্ষর।

৫. ‘বৃষ্টি পড়ে টাপুর টুপুর নদে এল বান’
-এখানে ‘টাপুর টুপুর’ কোন ধরনের শব্দ?
[ক] অবস্থাবাচক শব্দ
[খ] বাক্যালঙ্কার শব্দ
✅ ধ্বন্যাত্মক শব্দ
[ঘ] দ্বিরুক্ত শব্দ

☂ প্রশ্ন বিশ্লেষণ:
🔶 যেসব শব্দ অব্যক্ত রব, শব্দ বা ধ্বনির অনুকরণে গঠিত হয় তাকে বলে- অনুকার বা ধ্বন্যাত্মক শব্দ। যেমন : কুহু কুহু (কোকিলের রব), টাপুর টুপুর (বৃষ্টির পতনের শব্দ), হু হু (বাতাস প্রবাহের শব্দ)।

৬. কোনটি দ্বন্দ্ব সমাসের উদাহরণ?
[ক] সিংহাসন
✅ ভাই-বোন
[গ] কানাকানি
[ঘ] গাছপাকা

☂ প্রশ্ন বিশ্লেষণ:
ভাই-বোন
🔶 ভাইবোন- ভাই ও বোন (দ্বন্দ্ব সমাস)।
সিংহাসন
🔶 সিংহাসন-সিংহ চিহ্নিত আসন (মধ্যপদলোপী কর্মধারয় সমাস)।
কানাকানি
🔶 কানাকানি- কানে কানে যে কথা (ব্যতিহার বহুব্রীহি সমাস)।
গাছপাকা
🔶 গাছপাকা- গাছে পাকা (সপ্তমী তৎপুরুষ সমস)।

Bangla General Knowledge (GK) question answer pdf download.

৭. ‘যা সহজে অতিক্রম করা যায় না’-এ বাক্যাংশের সংক্ষিপ্ত রূপ কি?
[ক] অনতিক্রম্য
[খ] অলংঘ্য
✅ দূরতিক্রম্য
[ঘ] দুর্গম

☂ প্রশ্ন বিশ্লেষণ:
দূরতিক্রম্য
🔶 যা সহজে অতিক্রম করা যায় না- দূরতিক্রম্য।
অনতিক্রম্য
🔶 যা অতিক্রম করা যায় না- অনতিক্রম্য।
অলংঘ্য
🔶 যা লংঘন করা যায় না- অলংঘ্য।
দুর্গম
🔶 যেখানে সহজে গমন করা যায় না- দুর্গম।

৮. ‘ব্যাঙের সর্দি’ অর্থ কি?
[ক] রোগ বিশেষ
[খ] সম্ভাব্য ঘটনা
✅ অসম্ভব ঘটনা
[ঘ] প্রতারণা

৯. ‘সংশপ্তক’ কার রচনা?
[ক] মুনীর চৌধুরী
✅ শহীদুল্লাহ কায়সার
[গ] জহির রায়হান
[ঘ] শওকত ওসমান

☂ প্রশ্ন বিশ্লেষণ:
শহীদুল্লাহ কায়সার
🔶 শহীদুল্লাহ কায়সার রচিত একটি উপন্যাস- ‘সংশপ্তক’ (১৯৬৫)।
🔶 তার অন্য একটি বিখ্যাত উপন্যাস- ‘সারেং বৌ’।
🔶 শহীদুল্লাহ কায়সার ছিলেন- শহীদ বুদ্ধিজীবী।
🔶 তাকে অপহরণ করে নিয়ে যাওয়া হয়- ১৯৭১ সালের ১৪ ডিসেম্বর। এরপর তার আর সন্ধান পাওয়া যায়নি।
🔶 তার সহোদর- জহির রায়হান।
মুনীর চৌধুরী
🔶 নাট্যকার, গল্প লেখক ও শহীদ বুদ্ধিজীবী মুনীর চৌধুরীর বিখ্যাত নাটক- ‘কবর’ (১৯৬৬), ‘রক্তাক্ত প্রান্তর’ (১৯৬২), মুখরা রমণী বশীকরণ’ (১৯৭০)।
🔶 তিনি রচনা করেননি- কোনো উপন্যাস।
জহির রায়হান
🔶 জহির রায়হান রচিত উল্লেখযোগ্য উপন্যাস- ‘আরেক ফাল্গুন’, ‘হাজার বছর ধরে’, ‘বরফ গলা নদী’।
শওকত ওসমান
🔶 শওকত ওসমানের উপন্যাস- ‘ক্রীতদাসের হাসি’ (১৯৬২) ‘জননী’ (১৯৬১), ‘জাহান্নাম হইতে বিদায়’ (১৯৭১), ‘দুই সৈনিক’ (১৯৭৩) প্রভৃতি।

১০. ‘একুশে ফেব্রুয়ারি’ প্রথম সংকলনের সম্পাদক কে?
[ক] শওকত ওসমান
[খ] জহির রায়হান
[গ] আব্দুল গণি হাজারী
✅ হাসান হাফিজুর রহমান

☂ প্রশ্ন বিশ্লেষণ:
🔶 ‘একুশে ফেব্রুয়ারি’ প্রথম সংকলনের সম্পাদক ছিলেন- হাসান হাফিজুর রহমান।
🔶 ‘একুশে ফেব্রুয়ারি’ সাহিত্য সংকলনটি প্রকাশিত হয়- ’৫২ ভাষা আন্দোলনের শহীদদের স্মরণে, ১৯৫৩ সালে।
🔶 লেখকের সম্পাদনায় প্রকাশিত হয়- ১৬ খন্ডে ‘বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধ : দলিলপত্র’ (১৯৮২-৮৩)।

১১. ‘নদী ও নারী’ কার রচনা?
[ক] কাজী আব্দুল ওদুদ
[খ] আবুল ফজল
[গ] শামসুদ্দিন আবুল কালাম
✅ হুমায়ুন কবির

☂ প্রশ্ন বিশ্লেষণ:
হুমায়ুন কবির
🔶 হুমায়ুন কবির রচিত একটি উপন্যাস- ‘নদী ও নারী’ (১৯৪৫)।
কাজী আব্দুল ওদুদ
🔶 কাজী আবদুল ওদুদ রচিত উপন্যাস- ‘নদীবক্ষে’ (১৯১৮)।
আবুল ফজল
🔶 আবুল ফজল রচিত উপন্যাস- ‘রাঙা প্রভাত’ (১৩৬৪ বং), ‘প্রদীপ ও পতঙ্গ’ (১৩৪৭ বং), ‘চৌচির’ (১৯৩৪)।
শামসুদ্দিন আবুল কালাম
🔶 শামসুদ্দীন আবুল কালাম রচিত বিখ্যাত উপন্যাস- ‘কাশবনের কন্যা’।

১২. কাজী নজরুল ইসলাম রচিত গ্রন্থ কোনটি?
[ক] অগ্নিকোণ
[খ] মরুশিখা
[গ] মরুসূর্য
✅ রাঙাজবা

☂ প্রশ্ন বিশ্লেষণ:
রাঙাজবা
🔶 কাজী নজরুল ইসলামের সঙ্গীতবিষয়ক গ্রন্থ- রাঙাজবা।
মরুশিখা
🔶 যতীন্দ্রনাথ সেনগুপ্তের কাব্যগ্রন্থ- মরুশিখা।
মরুসূর্য
🔶 আ. ন. ম. বজলুর রশীদ রচিত কাব্যগ্রন্থ- মরুসূর্য।

১৩. ‘আত্মঘাতী বাঙালি’ কার রচিত গ্রন্থ?
[ক] অশোক মিত্র
[খ] দেবীপ্রসাদ চট্টোপাধ্যায়
✅ নীরদচন্দ্র চৌধুরী
[ঘ] অতুল সুর

☂ প্রশ্ন বিশ্লেষণ:
নীরদচন্দ্র চৌধুরী
🔶 ‘আত্মঘাতী বাঙালি’ রচনা করেন- নীরোদ চন্দ্র চৌধুরী।
অশোক মিত্র
🔶 অশোক মিত্র রচিত গ্রন্থ- ‘কবিতা থেকে মিছিল’।
দেবীপ্রসাদ চট্টোপাধ্যায়
🔶 দেবপ্রসাদ চট্টোপাধ্যায় রচিত গ্রন্থ- ‘যে গল্পের শেষ নেই’, ‘লোকায়ত দর্শন’।

১৪. ‘সংস্কৃতির ভাঙা সেতু’ গ্রন্থ কে রচনা করেছেন?
[ক] মোতাহের হোসেন চৌধুরী
[খ] বিনয় ঘোষ
✅ আখতারুজ্জামান ইলিয়াস
[ঘ] রাধারমণ মিত্র

☂ প্রশ্ন বিশ্লেষণ:
🔶 আখতারুজ্জামান ইলিয়াস রচিত প্রবন্ধগ্রন্থ- ‘সংস্কৃতির ভাঙ্গা সেতু’।

১৫. কাক ভূষন্ডির অর্থ কি?
[ক] ষড়যন্ত্রকারী
[খ] বাকসর্বস্ব
[গ] দীর্ঘ প্রতীক্ষমান
✅ দীর্ঘায়ু ব্যক্তি

১৬. নিত্য মূর্ধন্য-ষ কোন শব্দে বর্তমান?
[ক] কষ্ট
[খ] উপনিষৎ
[গ] কল্যাণীয়েষু
✅ আষাঢ়

☂ প্রশ্ন বিশ্লেষণ:
🔶 কতগুলো শব্দে স্বভাবতই মূর্ধন্য-ষ বসে। যেমন- আষাঢ়, ঊষা, ঈষৎ, পাষন্ড, পাষাণ, ভাষা, শোষণ ইত্যাদি।

GK - সাধারণ জ্ঞান বাংলা - Bangla Literature

১৭. ‘‘বউ কথা কও, বউ কথা কও
কও কথা অভিমানিনী
সেধে সেধে কেঁদে কেঁদে
যাবে কত যামিনী’’-এই কবিতাংশটুকুর কবি কে?
[ক] বেনজীর আহমেদ
✅ কাজী নজরুল ইসলাম
[গ] জীবনানন্দ দাশ
[ঘ] শামসুর রাহমান

১৮. বাংলা সাহিত্যে ‘ভোরের পাখি’ বলা হয় কাকে?
[ক] রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
[খ] রাজশেখর বসু
[গ] ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর
✅ বিহারীলাল চক্রবর্তী

☂ প্রশ্ন বিশ্লেষণ:
বিহারীলাল চক্রবর্তী
🔶 আধুনিক গীতিকবিতার স্রষ্টা বিহারীলালের উপাধি- ভোরের পাখি।
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
🔶 রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের উপাধি- বিশ্বকবি, কবিগুরু।
রাজশেখর বসু
🔶 রাজশেখর বসুর ছদ্মনাম- পরশুরাম।
ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর
🔶 ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরের উপাধি- বাংলা গদ্যের জনক।

১৯. বাংলা সাহিত্যে প্রথম মুসলিম নাট্যকার রচিত নাট্যগ্রন্থ কোনটি?
[ক] জগৎ মোহিনী
✅ বসন্ত কুমারী
[গ] আয়না
[ঘ] মোহিনী প্রেমপাস

☂ প্রশ্ন বিশ্লেষণ:
🔶 বাংলা সাহিত্যের প্রথম উল্লেখযোগ্য মুসলমান সাহিত্যিক রচিত নাট্যগ্রন্থ- মীর মশাররফ হোসেন রচিত ‘বসন্ত কুমারী’।

২০. কোন বানানটি শুদ্ধ?
[ক] বিভিসীকা
✅ বিভীষিকা
[গ] বীভিষিকা
[ঘ] বীভিষীকা

২১. কোন খ্যাতিমান লেখক ‘বীরবল’ ছদ্মনামে লিখতেন?
[ক] প্রমথনাথ বিশী
✅ প্রমথ চৌধুরী
[গ] প্রেমেন্দ্র মিত্র
[ঘ] প্রমথ নাথ বসু

☂ প্রশ্ন বিশ্লেষণ:
প্রমথ চৌধুরী
🔶 বাংলা সাহিত্যে চলিত ভাষার প্রবর্তক প্রমথ চৌধুরীর ছদ্মনাম- বীরবল।
🔶 এ ছদ্মনামে তিনি লিখেছেন- ‘বীরবলের হালখাতা’।

প্রমথনাথ বিশী
🔶 বিশিষ্ট রবীন্দ্র অধ্যাপক প্রমথনাথ বিশী (১৯০১-১৯৮৫) ছিলেন- রবীন্দ্র সাহিত্যের একজন নিপুণ বিশ্লেষক।
প্রেমেন্দ্র মিত্র
🔶 কল্লোল গোষ্ঠীর বিশিষ্ট লেখক প্রেমেন্দ্র মিত্রের (১৯০৪-১৯৮৮) সাহিত্যকর্মের মূল প্রতিপাদ- সাধারণ মানুষের প্রতি অনুরাগ।

২২. বাংলা ভাষার আদি স্তরের স্থিতিকাল কোনটি?
✅ দশম থেকে চতুর্দশ শতাব্দী
[খ] একাদশ থেকে পঞ্চদশ শতাব্দী
[গ] দ্বাদশ থেকে ষোড়শ শতাব্দী
[ঘ] ত্রয়োদশ থেকে সপ্তদশ শতাব্দী

☂ প্রশ্ন বিশ্লেষণ:
🔶 ড. সুনীতিকুমার চট্টোপাধ্যায় ও অধিকাংশের মতে- বাংলা ভাষার আদিস্তরের স্থিতিকাল দশম থেকে চতুর্দশ শতাব্দী।
🔶 ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহর মতে- আদিস্তরের স্থিতিকাল সপ্তম থেকে দ্বাদশ শতাব্দী।

২৩. যৌগিক বাক্যের অন্যতম গুণ কি?
[ক] একটি জটিল ও একটি সরল বাক্যের সাহায্যে বাক্য গঠন
[খ] একটি সংযুক্ত ও একটি বিযুক্ত বাক্যের সাহায্যে বাক্য গঠন
✅ দুটি সরল বাক্যের সাহায্যে বাক্য গঠন
[ঘ] দুটি মিশ্র বাক্যের সাহায্যে বাক্য গঠন

২৪. ‘রাবণের চিতা’ বাগধারাটির অর্থ কি?
[ক] অনিষ্টে ইষ্ট লাভ
✅ চির অশান্তি
[গ] অরাজক দেশ
[ঘ] সামান্য কিছু নিয়ে ঝগড়া বাধানো

☂ প্রশ্ন বিশ্লেষণ:
চির অশান্তি
🔶 ‘রাবণের চিতা’ বাগধারাটির অর্থ- চির অশান্তি।
অনিষ্টে ইষ্ট লাভ
🔶 ‘অনিষ্টে ইষ্ট লাভ’-এর বাগধারা- শাপে বর।
অরাজক দেশ
🔶 ‘অরাজক দেশ’-এর বাগধারা- মগের মুল্লুক।
সামান্য কিছু নিয়ে ঝগড়া বাধানো
🔶 ‘সামান্য কিছু নিয়ে ঝগড়া লাগানো’-এর বাগধারা- ফুটো পয়সার লড়াই।

২৫. কোনটি ইব্রাহিম খাঁর গ্রন্থ নয়?
[ক] আনোয়ার পাশা
[খ] ইস্তাম্বুল যাত্রীর পত্র
✅ কুচবরণের কণ্যে
[ঘ] সোনার শিকল

☂ প্রশ্ন বিশ্লেষণ:
🔶 বন্দে আলী মিয়া রচিত কাব্যগ্রন্থ- ‘কুচবরণ কন্যে’।
🔶 ইব্রাহিম খাঁ রচিত গ্রন্থ- আনোয়ার পাশা (নাটক); ইস্তাম্বুল যাত্রীর পত্র (ভ্রমণকাহিনী) এবং সোনার শিকল (গল্পগ্রন্থ)।

২৬. কোন প্রবচনটি ‘হতভাগ্য’ অর্থে ব্যবহৃত?
✅ আট কপালে
[খ] উড়নচন্ডী
[গ] ছা-পোষা
[ঘ] ভুষন্ডির কাক

☂ প্রশ্ন বিশ্লেষণ:
আট কপালে
🔶 হতভাগ্য অর্থে ব্যবহৃত প্রবচন- আট কপালে।
উড়নচন্ডী
🔶 অমিতব্যয়ী অর্থে ব্যবহৃত প্রবচন- উড়নচন্ডী।
ছা-পোষা
🔶 পোষ্য ভারাক্রান্ত অর্থে ব্যবহৃত প্রবচন- ছা-পোষা।
ভুষন্ডির কাক
🔶 দীর্ঘায়ু ব্যক্তি অর্থে ব্যবহৃত প্রবচন- ভূষন্ডির কাক।

২৭. কার সম্পাদনায় ‘সংবাদ প্রভাকর’ প্রথম প্রকাশিত হয়?
[ক] প্রমথনাথ চৌধুরী
✅ ঈশ্বরচন্দ্র গুপ্ত
[গ] প্যারীচাঁদ মিত্র
[ঘ] দীনবন্ধু মিত্র

☂ প্রশ্ন বিশ্লেষণ:
ঈশ্বরচন্দ্র গুপ্ত
🔶 ঈশ্বরচন্দ্র গুপ্তের সম্পাদিত পত্রিকা- ‘সংবাদ প্রভাকর’ (১৮৩১), এটি প্রথম বাংলা সংবাদপত্র।
প্রমথনাথ চৌধুরী
🔶 প্রমথ চৌধুরী সম্পাদিত সাহিত্য পত্রিকা- ‘সবুজপত্র’।
🔶 প্যারীচাঁদ মিত্রের সম্পাদিত পত্রিকা- ‘মাসিক পত্রিকা’ (১৮৫৪)।

২৮. মৌলিক শব্দ কোনটি?
✅ গোলাপ
[খ] শীতল
[গ] নেয়ে
[ঘ] গৌরব

☂ প্রশ্ন বিশ্লেষণ:
🔶 যে শব্দকে আর বিশ্লেষণ করা যায় না, তাকে বলে- মৌলিক শব্দ। যেমন- গোলাপ, নাক, লাল।
🔶 শীতল, নেয়ে, গৌরব- সাধিত শব্দ।
🔶 যে শব্দকে বিশ্লেষণ করলে আলাদা অর্থবোধক শব্দ পাওয়া যায়, তাকে বলে- সাধিত শব্দ।

২৯. যার কোনো মূল্য নেই, তাকে বাগধারা দিয়ে প্রকাশ করলে কোনটি হয়?
[ক] ডাকাবুকা
[খ] তুলশী বনের বাঘ
[গ] তামার বিষ
✅ ঢাকের বাঁয়া

☂ প্রশ্ন বিশ্লেষণ:
ঢাকের বাঁয়া
🔶 যার কোনো মূল্য নেই- ঢাকের বাঁয়া।
ডাকাবুকা
🔶 নির্ভীক- ডাকাবুকা।
তুলশী বনের বাঘ
🔶 ভন্ড- তুলসী বনের বাঘ।
তামার বিষ
🔶 অর্থের কুপ্রভাব- তামার বিষ।

৩০. ‘আমীর হামজা’ কাব্য রচনা করেন কে?
[ক] আলাওল
✅ ফকীর গরীবুল্লাহ
[গ] সৈয়দ হামজা
[ঘ] রেজাউদ্দৌলা

☂ প্রশ্ন বিশ্লেষণ:
🔶 ‘আমীর হামজা’ কাব্য রচনা করেন- ফকির গরীবুল্লাহ।
🔶 তিনি কাব্যটি অসমাপ্ত রেখে মারা গেলে তা সম্পন্ন করেন- সৈয়দ হামজা।
🔶 দোভাষী পুঁথি রচয়িতা হিসেবে প্রথম প্রধান ও জনপ্রিয় কবি- ফকির গরীবুল্লাহ ও সৈয়দ হামজা দ্বিতীয়।
🔶 সৈয়দ হামজার শ্রেষ্ঠ রচনা- মধুমালতী, জৈগুনের পুথি ও হাতেম তাই।

৩১. বাংলা লিপির উৎস কী?
[ক] সংস্কৃতি লিপি
[খ] চীনা লিপি
[গ] আরবি লিপি
✅ ব্রাহ্মী লিপি

☂ প্রশ্ন বিশ্লেষণ:
🔶 বাংলা লিপির উৎস- ব্রাহ্মী লিপি।
🔶 প্রাচীন ভারতীয় লিপির ২টি রূপ- ব্রাহ্মী ও খরোষ্ঠী।
🔶 ব্রাহ্মী লিপি ৩টি লিপিতে বিভক্ত- পূর্বী লিপি, মধ্যভারতীয় লিপি ও পশ্চিমা লিপি।
🔶 বাংলা লিপি উদ্ভুত- পূর্বী লিপির কুটিল রূপ হতে।

৩২. কোনটি বিশেষণ বাচক শব্দ?
[ক] জীবন
✅ জীবনী
[গ] জীবিকা
[ঘ] জীবাণু

☂ প্রশ্ন বিশ্লেষণ:
জীবনী
🔶 জীবনী- বিশেষণ।
জীবন
🔶 জীবন- বিশেষ্য।
জীবিকা
🔶 জীবিকা- বিশেষ্য।
জীবাণু
🔶 জীবাণু- বিশেষ্য।

৩৩. বর্ণ হচ্ছে-
[ক] শব্দের ক্ষুদ্রতম অংশ
[খ] একসঙ্গে উচ্চারিত ধ্বনিগুচ্ছ
✅ ধ্বনি নির্দেশক প্রতীক
[ঘ] ধ্বনির শ্রুতিগ্রাহ্য রূপ

☂ প্রশ্ন বিশ্লেষণ:
🔶 ধ্বনি নির্দেশক প্রতীক- বর্ণ।
🔶 শব্দের ক্ষুদ্রতম অংশকে বলে- রূপ।
🔶 একসঙ্গে উচ্চারিত ধ্বনিগুচেছর অর্থবোধক মিলনে তৈরি হয়- শব্দ।

৩৪. কবি জসীমউদ্দীনের জীবনকাল কোনটি?
✅ ১৯০৩-১৯৭৬
[খ] ১৮৮৯-১৯৬৬
[গ] ১৮৯৯-১৯৭৯
[ঘ] ১৯১০-১৯৮৭

☂ প্রশ্ন বিশ্লেষণ:
🔶 কবি জসীমউদ্দীনের জীবনকাল- ১৯০৩-১৯৭৬।
🔶 পল্লীকবি জসীমউদ্দীনের জন্ম- ১৯০৩ সালে, ফরিদপুরের তাম্বুলখানা গ্রামে।
🔶 কবির মৃত্যু- ১৯৭৬ সালের ১৪ মার্চ, ঢাকায়।

৩৫. রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ‘নির্ঝরের স্বপ্নভঙ্গ’ কবিতায় কবির উপলব্ধি হচ্ছে-
✅ ভবিষ্যৎ বিচিত্র ও বিপুল সম্ভাবনাময়
[খ] বাধা-বিপত্তি প্রতিভাকে অঙ্কুরেই বিনষ্ট করে
[গ] প্রকৃতি বিপুল ঐশ্বর্য্যের অধিকারী
[ঘ] ভাঙ্গার পরেই গড়ার কাজ শুরু

☂ প্রশ্ন বিশ্লেষণ:
🔶 রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ‘নির্ঝরের স্বপ্নভঙ্গ’ কবিতায় কবির উপলব্ধি হচ্ছে- ভবিষ্যৎ বিচিত্র ও বিপুল সম্ভাবনাময়।
🔶 রবীন্দ্রনাথের প্রথম জীবনে সর্বাপেক্ষা উজ্জবল কবিতা- নির্ঝরের স্বপ্নভঙ্গ।
🔶 কবিতার প্রথম লাইন- আজি এ প্রভাতে রবির কর/কেমনে পশিল প্রাণের পর।

৩৬. জাতিবাচক বিশেষ্যের দৃষ্টান্ত-
[ক] সমাজ
[খ] পানি
[গ] মিছিল
✅ নদী

☂ প্রশ্ন বিশ্লেষণ:
নদী
🔶 জাতিবাচক বিশেষ্য- নদী।
সমাজ, মিছিল
🔶 সমষ্টিবাচক বিশেষ্য- সমাজ, মিছিল।
পানি
🔶 বস্তুবাচক বিশেষ্য- পানি।

GK - সাধারণ জ্ঞান বাংলা - Bangla Literature

৩৭. ‘গোঁফ-খেজুরে’-এই বাগ্বিধির অর্থ কি?
[ক] আরামপ্রিয়
[খ] উদাসীন
✅ নিতান্ত অলস
[ঘ] পরমুখাপেক্ষী

৩৮. কোন দুটি অঘোষ ধ্বনি?
✅ চ ছ
[খ] ড ঢ
[গ] ব ভ
[ঘ] দ ধ

☂ প্রশ্ন বিশ্লেষণ:
🔶 যে ধ্বনি উচ্চারণের সময় স্বরতন্ত্রী অনুরণিত হয় না, তাকে বলা হয়- অঘোষ ধ্বনি।
🔶 বর্গের প্রথম ও দ্বিতীয় ধ্বনি- অঘোষ ধ্বনি। যেমন- ক খ, চ ছ, ট ঠ, প ফ।
🔶 যে ধ্বনি উচ্চারণের সময় স্বরতন্ত্রী অনুরণিত হয়, তাকে বলে- ঘোষ ধ্বনি। বর্গের তৃতীয় ও চতুর্থ ধ্বনি ঘোষ ধ্বনি। যেমন : গ ঘ, জ ঝ, ড ঢ, ব ভ।

৩৯. কোন বাক্যে ‘ঢাক্ ঢাক্ গুড় গুড়’ প্রবাদটির বিশেষ অর্থ প্রকাশ পেয়েছে?
[ক] ঢাক্ ঢাক্ গুড় গুড় করে কি লাভ, কাজে লেগে যাও
✅ ঢাক্ ঢাক্ গুড় গুড় করে কি লাভ, আসল কথাটি বল
[গ] ঢাক্ ঢাক্ গুড় গুড় করে কি লাভ, কি খাবে বল
[ঘ] ঢাক্ ঢাক্ গুড় গুড় করে কি লাভ, নিজের পায়ে দাঁড়াও

☂ প্রশ্ন বিশ্লেষণ:
🔶 ঢাক ঢাক গুড় গুড় বাগধারাটির অর্থ- লুকোচুরি।
🔶 এই অর্থ প্রকাশ পেয়েছে- ঢাক ঢাক গুড় গুড় করে কি লাভ, আসল কথাটি বল- শুধু এ বাক্যটিতেই।

8০. বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের ‘কৃষ্ণকান্তের উইল’ উপন্যাসের প্রধান দুটি চরিত্রের নাম-
[ক] নগেন্দ্রনাথ ও কুন্দনন্দিনী
[খ] মধুসূদন ও কুমুদিনী
✅ গোবিন্দলাল ও রোহিনী
[ঘ] সুরেশ ও অচেলা

☂ প্রশ্ন বিশ্লেষণ:
গোবিন্দলাল ও রোহিনী
🔶 ‘কৃষ্ণকান্তের উইল’ উপন্যাসের চরিত্র- গোবিন্দলাল ও রোহিনী।
নগেন্দ্রনাথ ও কুন্দনন্দিনী
🔶 ‘বিষবৃক্ষ’ উপন্যাসের চরিত্র- নগেন্দ্রনাথ ও কুন্দনন্দিনী।
মধুসূদন ও কুমুদিনী
🔶 ‘যোগাযোগ’ উপন্যাসের চরিত্র- মধুসুদন ও কুমুদিনী।
সুরেশ ও অচেলা
🔶 ‘গৃহদাহ’ উপন্যাসের চরিত্র- সুরেশ ও অচলা।

8১. ‘যা পূর্বে ছিল এখন নেই’-এক কথায় কি হবে?
[ক] অপূর্ব
[খ] অদৃষ্টপূর্ব
[গ] অভূতপূর্ব
✅ ভূতপূর্ব

☂ প্রশ্ন বিশ্লেষণ:
ভূতপূর্ব
🔶 যা পূর্বে ছিল এখন নেই- ভূতপূর্ব।
অদৃষ্টপূর্ব
🔶 যা পূর্বে দেখা যায়নি- অদৃষ্টপূর্ব।
অভূতপূর্ব
🔶 যা পূর্বে কখনো ঘটেনি- অভূতপূর্ব।

8২. কোন বাক্যে সমুচ্চয়ী অব্যয় ব্যবহৃত হয়েছে?
[ক] ধন অপেক্ষা মান বড়
[খ] তোমাকে দিয়ে কিছু হবে না
[গ] ঢং ঢং ঘণ্টা বাজে
✅ লেখাপড়া কর, নতুবা ফেল করবে

☂ প্রশ্ন বিশ্লেষণ:
লেখাপড়া কর, নতুবা ফেল করবে
🔶 লেখাপড়া কর, নতুবা ফেল করবে- সমুচ্চয়ী অব্যয়।
🔶 যে অব্যয় পদ একটি বাক্যের অথবা বাক্যস্থিত একটি পদের সাথে অন্য একটি পদের সংযোজন, বিয়োজন বা সংকোচন ঘটায়, তাকে বলে- সমুচ্চয়ী অব্যয়। যেমন : লেখাপড়া কর, নতুবা ফেল করবে।
ধন অপেক্ষা মান বড়
🔶 ধন অপেক্ষা মান বড়- অনুসর্গ অব্যয়।
তোমাকে দিয়ে কিছু হবে না
🔶 তোমাকে দিয়ে কিছু হবে না- অনুসর্গ অব্যয়।
ঢং ঢং ঘণ্টা বাজে
🔶 ঢং ঢং ঘণ্টা বাজে- অনুকার অব্যয়।

8৩. কোন সালে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জন্ম-শতবার্ষিকী পালিত হয়?
[ক] ১৯৫১
✅ ১৯৬১
[গ] ১৯৭১
[ঘ] ১৯৮১

☂ প্রশ্ন বিশ্লেষণ:
🔶 রবীন্দ্রনাথের জন্ম- ১৮৬১ সালে। অতএব, জন্মশতবার্ষিকী পালিত হয় ১৯৬১ সালে।

8৪. ইসলামের ইতিহাস ও ঐতিহ্য কোন কাব্যের উপজীব্য?
[ক] জিঞ্জির- কাজী নজরুল ইসলাম
✅ সাত সাগরের মাঝি-ফররুখ আহমদ
[গ] দিলরুবা- আবদুল কাদির
[ঘ] নূরনামা-আবদুল হাকিম

☂ প্রশ্ন বিশ্লেষণ:
সাত সাগরের মাঝি-ফররুখ আহমদ
🔶 ‘সাত সাগরের মাঝি’ কাব্যের উপজীব্য- ইসলামের ইতিহাস ও ঐতিহ্য।
জিঞ্জির- কাজী নজরুল ইসলাম
🔶 ‘জিঞ্জির’ কাব্যের উপজীব্য- বিদ্রোহের সুর।
দিলরুবা- আবদুল কাদির
🔶 ‘দিলরুবা’ কাব্যের উপজীব্য- প্রেমপ্রধান।
নূরনামা-আবদুল হাকিম
🔶 ‘নূরনামা’ কাব্যের উপজীব্য- বাংলা ভাষার গূণকীর্তন।

8৫. ‘অনল প্রবাহ’ রচনা করেন-
✅ সৈয়দ ইসমাইল হোসেন সিরাজী
[খ] মোজাম্মেল হক
[গ] এয়াকুব আলী চৌধুরী
[ঘ] মুনিরুজ্জামান ইসলামাবাদী

☂ প্রশ্ন বিশ্লেষণ:
🔶 ইসমাইল হোসেন সিরাজী রচিত একটি কাব্যগ্রন্থ- ‘অনল প্রবাহ’ (১৮৯৯)।
🔶 ‘অনল প্রবাহ’ ব্রিটিশ সরকার কর্তৃক বাজেয়াপ্ত হয় কারণ কাব্যগ্রন্থটি- রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে রচিত।

8৬. কোন বাক্যে সমাপিকা ক্রিয়া ব্যবহৃত হয়েছে?
[ক] আমি ভাত খাচ্ছি
[খ] আমি ভাত খেয়ে স্কুলে যাব
✅ আমি দুপুরে ভাত খাই
[ঘ] তাড়াতাড়ি ভাত খেয়ে ওঠ

☂ প্রশ্ন বিশ্লেষণ:
🔶 আমি ভাত খেয়ে (অসমাপিকা ক্রিয়া) স্কুলে যাব (সমাপিকা ক্রিয়া) এখানে খেয়ে ক্রিয়াপদটি দিয়ে বাক্যের অর্থের পরিসমাপ্তি ঘটেনি। তাই এটি- অসমাপিকা ক্রিয়া।

8৭. জীবনানন্দ দাশের রচিত কাব্যগ্রন্থ-
✅ ধূসর পান্ডুলিপি
[খ] নাম রেখেছি কোমল গান্ধার
[গ] একক সন্ধ্যায় বসন্ত
[ঘ] অন্ধকারে একা

☂ প্রশ্ন বিশ্লেষণ:
ধূসর পান্ডুলিপি
🔶 জীবনানন্দ দাশ রচিত কাব্যগ্রন্থ- ধূসর পান্ডুলিপি।
একক সন্ধ্যায় বসন্ত
🔶 সৈয়দ আলী আহসান রচিত কাব্যগ্রন্থ- একক সন্ধ্যায় বসন্ত।
নাম রেখেছি কোমল গান্ধার
🔶 বিষ্ণু দে রচিত কাব্যগ্রন্থ- নাম রেখেছি কোমল গান্ধার।
অন্ধকারে একা
🔶 মোহাম্মদ উল্লাহ রচিত কাব্যগ্রন্থ- অন্ধকারে একা।

8৮. ‘বন্যেরা বনে সুন্দর, শিশুরা মাতৃক্রোড়ে’ এ উক্তিটির প্রকৃত তাৎপর্য হচ্ছে-
[ক] আদিবাসী মানুষ অরণ্য জন পদে বাস করে
[খ] বনের পশু বনে থাকতেই ভালোবাসে
✅ জীবমাত্রই স্বাভাবিক অবস্থানে সুন্দর
[ঘ] প্রকৃতির রূপ-সৌন্দর্য আদি ও অকৃত্রিম

8৯. কোন বাক্যে নাম পুরুষের ব্যবহার করা হয়েছে?
✅ ওরা কি করে?
[খ] আপনি আসবেন
[গ] আমরা খাচ্ছি
[ঘ] তোরা খাসনে

☂ প্রশ্ন বিশ্লেষণ:
ওরা কি করে
🔶 ওরা কি করে- নাম পুরুষ (তুচ্ছার্থে)।
আপনি আসবেন
🔶 আপনি আসবেন?- মধ্যম পুরুষ (সম্মানার্থে)।
আমরা খাচ্ছি
🔶 আমরা খাচ্ছি- উত্তম পুরুষ।
তোরা খাসনে
🔶 তোরা খাসনে- মধ্যম পুরুষ (তুচ্ছার্থে)।

৫০. মধ্যপদলোপী কর্মধারয়-এর দৃষ্টান্ত-
[ক] ঘর থেকে ছাড়া-ঘরছাড়া
[খ] অরুণের মতো রাঙা-অরুণরাঙা
✅ হাসিমাখা মুখ-হাসিমুখ
[ঘ] ক্ষণ ব্যাপিয়া স্থায়ী-ক্ষণস্থায়ী

☂ প্রশ্ন বিশ্লেষণ:
হাসিমাখা মুখ
🔶 হাসিমাখা মুখ-হাসিমুখ (মধ্যপদলোপী কর্মধারয়)
ঘর থেকে ছাড়া
🔶 ঘর থেকে ছাড়া- ঘরছাড়া (পঞ্চমী তৎপুরুষ)।
অরুণের মতো রাঙা
🔶 অরুণের মতো রাঙা- অরুণরাঙা (উপমান কর্মধারয়)।
ক্ষণ ব্যাপিয়া স্থায়ী
🔶 ক্ষণকাল ব্যাপিয়া স্থায়ী- ক্ষণস্থায়ী (২য়া তৎপুরুষ)।

0 Please Share Your Opinion: